কুরআনের অসম্পূর্ণ খতম বখশানোর বিধান

জিজ্ঞাসা: অনেক সময় দেখা যায় যে, কেউ ছাত্রদের কে খতম পড়ানোর জন্য দাওয়াত দেয়, কিন্তু ছাত্ররা দশ-পনেরো পারা বাকী থাকতে পড়া বন্ধ করে চলে আসে। এই নিয়তে যে পরবর্তীতে তা পড়ে নেবে। এদিকে মেজবান খতম শেষ হয়েছে এই ভেবে মসজিদে হুযুরের মাধ্যমে খতম বখশিয়ে দেয়। এ ধরনের খতম বখশানোর দ্বারা মৃত ব্যক্তি পূর্ণ কুরআন খতমের সাওয়াব পাবে কিনা ? জবাব:......

বিস্তারিত»

ঈসালে সওয়াবের বিনিময় গ্রহণের বিধান

জিজ্ঞাসা: আমি এক আলেম থেকে শুনেছি যে, মৃত ব্যক্তির জন্য খতম ও খাওয়া, এক সাথে হলে জায়েয নেই। খতম পড়লে খাওয়া যাবে না আর যদি খাওয়া হয় তবে খতম পড়া যাবে না। উপরোক্ত মতামত কতটা শরীয়ত সম্মত ? জবাব: মৃত ব্যক্তির রূহে ঈসালে সাওয়াবের উদ্দেশ্যে কুরআন তিলাওয়াত করে কোনরূপ বিনিময় গ্রহণ করা শরীয়তের দৃষ্টিতে সম্পূর্ণ হারাম ও নাজায়েয। এভাবে তিলাওয়াতের......

বিস্তারিত»

এক খতম কুরআনের সওয়াব একাধিক মাইয়্যিতের নামে পৌঁছানো

জিজ্ঞাসা: অনেক সময় এক খতম কুরআন পড়ে সকল মাইয়্যিতের নামে পৌঁছে দেওয়া হয়। উক্ত খতমে কুরআনের সাওয়াব সকলকে ভাগ করে দেওয়া হবে কি ? না কি প্রত্যেককে পূর্ণ খতমে কুরআনের সাওয়াব দেওয়া হবে ? জবাব: প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে খতমে কুরআনের সাওয়াব যাদের নামে পাঠানো হয়েছে তাদের প্রত্যেকেই পূর্ণ খতমের সাওয়াব পাবে বলে এক জামাত উলামায়ে কেরাম ফাতওয়া প্রদান করেছেন। আর......

বিস্তারিত»

চল্লিশা করা ও চল্লিশার খাবার খাওয়া

জিজ্ঞাসা: ১. শরীয়তের দৃষ্টিতে মৃত ব্যক্তির চল্লিশার দিন খাবারের আয়োজন করার হুকুম কী এবং এই খাবার কারা খেতে পারবে? ২. মৃত ব্যক্তির মৃত্যুবার্ষিকী হিসেবে কী করা যেতে পারে ? জবাব: ১. মৃত ব্যক্তির মৃত্যু উপলক্ষ্যে নির্দিষ্ট দিন-তারিখ যেমন: তিনদিনা, সাতদিনা, ত্রিশা, চল্লিশা ইত্যাদি অনুসরণ করে কোন অনুষ্ঠান করা বা খাবারের আয়োজন করা শরীয়তের দৃষ্টিতে নাজায়েয, বেদআত ও গর্হিত কাজ। অবশ্য,......

বিস্তারিত»

খতমে কুরআনের বিনিময়ে টাকা আদান প্রদান

জিজ্ঞাসা: অমাদের গ্রামে মৃত ব্যক্তির বাড়ীতে খতম পড়ে হাদিয়া নেওয়ার রেওয়াজ আছে। কেউ কেউ বলেন, এই হাদিয়ার টাকা নেওয়া ও খাওয়া হারাম। মূলত এই টাকার হুকুম কী ? জবাব: মৃত ব্যক্তির উদ্দেশ্যে ঈসালে সওয়াব করা শরীয়তে বৈধ। যে কোন নফল ইবাদতের মাধ্যমে তা হতে পারে। যেমন, দান-সদকা করা, কুরআন তিলাওয়াত করা, যিকির-আযকার করা ইত্যাদি। তবে তা হতে হবে পূর্ণ ইখলাস......

বিস্তারিত»

দাফনের পর কবরের চার কোণে খুঁটি গাড়ার হুকুম

জিজ্ঞাসা: গ্রামাঞ্চলে দেখা যায় যে, কোন মৃত ব্যক্তিকে দাফন করার পর তার কবরের উপর চারটি খুঁটি চার কুল পড়ে গাড়া হয়, এর হুকুম কী? জবাব:কবরে লাশ দাফনের পর তার চার কোনায় খেজুর বা অন্য কোন গাছের ডাল গাড়া এবং তার চার কোনে ধরে চার কুল পড়ার যে প্রথা আমাদের দেশে প্রচলিত আছে তা শরীয়তের দৃুষ্টিতে বিদ‘আত ও বর্জনীয় কাজ। অনেকেই......

বিস্তারিত»

৭০ হাজার বার কালিমা তায়্যিবা পড়ে ঈসালে সাওয়াব করা

জিজ্ঞাসা: কোন আপনজন মারা গেলে ৭০ হাজার বার কালিমায়ে তাইয়্যিবা পাঠ করে ঈসালে সওয়াব করলে তার কবরের আযাব আল্লাহ তায়ালা মাফ করে দিবেন এ কথার সত্যতা প্রমাণসহ জানালে ভাল হয়। জবাব:সত্তর হাজার বার কালিমা (لااله الا الله) পাঠ করে তার সওয়াব মৃত ব্যক্তির নামে পাঠালে সে জাহান্নাম হতে মুক্তি পাবে। এ মর্মে কোন সহীহ বা জঈফ হাদীস আমাদের জানা মতে......

বিস্তারিত»

প্রবাসীর দাফন কোন জায়গায় হবে?

জিজ্ঞাসা : প্রবাসীর দাফন কোন জায়গায় হবে? যেখানে ইন্তিকাল করেছে সেখানে না কি নিজ দেশে? কুরআন হাদীসের আলোকে বিস্তারিতভাবে জানিয়ে উপকৃত করবেন। জবাব:মাইয়্যিতকে দাফনের ব্যাপারে বিশুদ্ধ বর্ণনা মোতাবেক মুস্তাহাব তরীকা হল, মাইয়্যিত যেখানে মৃত্যু বরণ করেছে তাকে সেখানেই বা তার আশ পাশের কোন গোরস্তানে দাফন করা। অবশ্য কবরস্তান দুরে থাকায় কিংবা অন্য কোন শরঈ উজরের কারণে কোন কোন ফকীহের মতে,......

বিস্তারিত»

মৃত প্রবাসী ব্যক্তির লাশ স্থানান্তর করা

জিজ্ঞাসা: কোন ব্যক্তি যদি পরিবারের উপর খরচ করার জন্য হালাল কামাই উপার্জনের নিয়্যতে এলাকা ছেড়ে অন্য দেশে যায় এবং সেখানে গিয়ে স্বাভাবিক মৃত্যুবরণ করে তাহলে তার জন্য কি কোন ফযীলত আছে? জবাব:এক হাদীসের বর্ণনানুযায়ী সে শহীদের সওয়াব পাবে। কারণ, প্রকৃতপক্ষে সে আল্লাহর রাস্তায় মৃত্যু বরণ করেছে। সূত্র: আল মুজামুল কাবীর: ১৯/১২৯, আল মুজামুস সগীর: ২/৬০, মিরকাতুল মাফাতীহ: ৩/৩৫৯, শামী: ২/২৫২।......

বিস্তারিত»

রোগ মুক্তির উদ্দেশ্যে কুরআন খতম করে বিনিময় গ্রহণ করা

জিজ্ঞাসা: আমাদের কয়েকজন ছাত্র দিয়ে মাদ্রাসার এক শিক্ষক তার আম্মার সুস্থতার জন্য কুরআন খতম করায়। আমরা সকলেই আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য কুরআন খতম করি। কিন্তু তিনি আমাদেরকে জোর পূর্বক টাকা দেন। আমাদের টাকা নেয়ার নিয়্যত না থাকা সত্তে¡ও টাকা নিতে হয়। এখন প্রশ্ন হল, অসুস্থ ব্যক্তির সুস্থতার জন্য কুরআন খতম করে টাকা নেয়া বৈধ কি না ? জবাব : হ্যাঁ রোগ......

বিস্তারিত»

কবর যিয়ারত করে বিনিময় গ্রহণ করা

জিজ্ঞাসা: আমাদের ইচ্ছা থাকা বা না থাকা সত্ত্বেও মানুষ যদি কবর যিয়ারতের উদ্দেশ্যে আমাদের কে হাদিয়া দেয় তাহলে তা গ্রহণ করা জায়েয হবে কি না ? আর যদি আমাদের কে দিয়ে ফেলে তাহলে আমাদের কী করণীয় ? জবাব : কবর যিয়ারতের উদ্দেশ্যে টাকা-পয়সা আদান-প্রদানের বিষয়টি শরীয়তে أجرة على الطاعة তথা কোন ইবাদত করে তার বিনিময় আদান-প্রদানের মাসআলার অন্তর্ভূক্ত। আর ইচ্ছায়......

বিস্তারিত»

খতমে কুরআনের বিনিময়ে টাকা নেওয়া

জিজ্ঞাসা: কুরআন খতম করি তাহলে আমার জন্য টাকা নেয়া জায়েয আছে কি না ? যদি আমাকে জোর করে দিয়ে দেয় তাহলে এ ক্ষেত্রে আমার কী করণীয় ? জবাব : যদি ঈসালে সাওয়াব তথা মৃত ব্যক্তির আমল নামায় সাওয়াব পৌঁছানো ও তার মাগফিরাতের উদ্দেশ্যে কুরআন খতম করা হয় তাহলে এর জন্য টাকা নেয়া শরীয়তে নাজায়েয ও হারাম। আর যদি উক্ত টাকা......

বিস্তারিত»

মৃত ব্যক্তিকে গোসল দিয়ে বিনিময় গ্রহণ

  জিজ্ঞাসা: মৃত ব্যক্তিকে গোসল দিয়ে এবং তার জানাযা পড়িয়ে বিনিময় নেওয়া যাবে কি? জবাব:মৃত ব্যক্তিকে গোসল দেয়ার মত লোক যদি একজনই থাকে, অন্য কেউ না থাকে তাহলে মায়্যিতকে গোসল দিয়ে তার বিনিময় নেওয়া জায়েয নেই। পক্ষান্তরে গোসল দেয়ার মত লোক সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি ছাড়া যদি আরও থাকে, তাহলে এক্ষেত্রে মায়্যিতকে গোসল দিয়ে বিনিময় নেওয়া জায়েয আছে। আর জানাযা পড়িয়ে তার......

বিস্তারিত»

গোসল, কাফন, জানাযা ব্যতিত আত্মহত্যাকারীকে মাটি চাপা দেওয়া

জিজ্ঞাসা: একজন প্রাপ্ত বয়স্কা মেয়ে আত্মহত্যা করেছে। অতঃপর তার অভিভাবকগন তাকে গোসল না দিয়ে কাফন জানাযা না দিয়ে শুধু একটি গর্তে মাটি চাপা দিয়েছে। প্রশ্ন হল পরবর্তীতে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা সমালোচনা শুরু হলে মেয়েটিকে ইসলামী কায়দায় কাফন-দাফন করানোর প্রস্তাব আসে। প্রশ্ন হল এমতাবস্থায় শরীয়তের বিধান কি? জবাব:প্রশ্নে বর্ণিত সুরতে মেয়েটিকে কবর থেকে উঠিয়ে গোসল কাফন দাফন ইত্যাদি করানোর সুযোগ নেই।......

বিস্তারিত»

প্রবাসীর লাশ দেশে ফেরৎ না এনে কোম্পানী থেকে টাকা নেওয়ার হুকুম

জিজ্ঞাসা: আমার মামাতো ভাই ব্রেন স্টোকে সৌদি আরবে মারা যায়। সে সেখানে একটি কোম্পানীতে চাকরি করতো। মামাতো ভাইয়ের মৃত্যুর পর কোম্পানীর মালিক বললো, যদি আপনারা লাশ দেশে ফেরত না নেন, তাহলে আমরা আপনাদেরকে ৫লক্ষ টাকা দিবো। এখন আমার মামাতো ভাইয়ের লাশ দেশে না এনে ঐ টাকা গ্রহণ করা যাবে কি? জবাব: মাইয়্যেত যেখানে মৃত্যুবরণ করে তার আশে পাশের কোন গোরস্তানে......

বিস্তারিত»

জানাযা নামাযের পর মৃত ব্যক্তির চেহারা দেখানো

জিজ্ঞাসা: জানাযা নামাযের পর মৃত ব্যক্তির চেহারা দেখানো জায়েয আছে কি? জবাব: মৃত ব্যক্তির কাফন-দাফন দ্রুত সম্পাদন করা একটি পালনীয় কর্তব্য। কারণ, হাদীসে এ বিষয়ে জোর তাকিদ প্রদান করা হয়েছে। কাজেই, জানাযা নামায হয়ে যাওয়ার পর মৃত ব্যক্তির চেহারা দেখানো মাকরূহ। যেহেতু এতে অহেতুক মাইয়্যেতকে দাফন করতে বিলম্ব হয়। তাছাড়া জানাযা নামাযের পর অনেক সময় বরজখী যিন্দেগীর নিদর্শন প্রকাশ পেয়ে......

বিস্তারিত»

জুতা পায়ে রেখে জানাযা নামায পড়া

জিজ্ঞাসা: জানাযা নামাযে জুতা পায়ে রাখার হুকুম কী? জবাব: জুতা পরিধান করে জানাযা নামায পড়ার মধ্যে কিছুটা ব্যাখ্যা রয়েছে। তা এই যে, ১. যদি জুতার নিচের অংশে ও উপরের অংশে নাপাক না থাকে, তাহলে জুতা পায়ে রেখে নামায পড়া জায়েয আছে, অবশ্য, এ সুরতে যদি যমীন নাপাক থাকে, তাহলে জুতা পবিত্র হলেও তা পা থেকে খুলে তার উপর দাঁড়িয়ে নামায......

বিস্তারিত»

আত্মহত্যাকারীর জানাযা নামায পড়ার হুকুম

জিজ্ঞাসা: আত্মহত্যাকারীর জানাযার নামায পড়া সঠিক হবে কি না? জবাব:আত্মহত্যাকারীর ব্যাপারে শরীয়তের বিধান হলো, তাকে গোসল দিয়ে তার জানাযার নামায পড়া। সুতরাং জনসাধারণের মাঝে আত্মহত্যাকারীর জানাযার নামায না পড়ার ব্যাপারে যে বাড়াবাড়ি লক্ষ্য করা যায় তা পরিত্যায্য। অবশ্য, সমাজের ধর্মীয় অনুসরণীয় ব্যক্তিবর্গ তার জানাযায় অংশ গ্রহণ করবে না। যাতে করে লোকদের মাঝে এই জাতীয় শরীয়ত বিরোধী কাজের প্রতি ঘৃণা সৃষ্টি......

বিস্তারিত»

গায়েবানা জানাযা

জিজ্ঞাসা: প্রচলিত গায়েবানা জানাযা নামাযের হুকুম কী? জবাব: জানাযা নামাযের জন্য যে সকল শর্ত রয়েছে তন্মধ্য হতে একটি শর্ত হলো, মাইয়্যেতের দেহ মুসল্লীগণের সামনে বিদ্যমান থাকা। আর গায়েবানা জানাযার ক্ষেত্রে এ শর্তটি পাওয়া যায় না। বিধায়, কোন অবস্থাতেই গায়েবানা জানাযা জায়েয নেই। সূত্র: ফাতহুল কাদীর : ২/১২০, আল বাহরুর রায়েক : ২/৩১৪, আদ্দুররুল মুখতার : ২/২০৮, ফাতাওয়া হিন্দিয়া : ১/১৬৪,......

বিস্তারিত»

দ্বিতীয়বার জানাযা নামায পড়া

জিজ্ঞাসা: এক জন মৃত ব্যক্তির জানাযার নামায দুইবার পড়া জায়েয আছে কি না? কোন কোন আলেম বলেন, জায়েয আছে। আবার কেউ কেউ বলেন, জায়েয নেই। সঠিক মত কোনটি? জবাব: হানাফী মাযহাব মতে একই মৃত ব্যক্তির জন্য দুই বা ততোধিক বার জানাযা নামায পড়া মাকরূহে তাহরীমী ও নাজায়েয। অবশ্য, যদি মাইয়্যিতের অভিভাবকের অনুমতি ব্যতীত জানাযা নামায পড়া হয়ে থাকে, তাহলে অভিভাবক......

বিস্তারিত»

একাধিকবার জানাযার নামায পড়ার বিধান

জিজ্ঞাসা: জানাযার নামায একাধিকবার পড়া জায়েয আছে কি? জবাব:মাইয়্যাতের অভিভাবকের অনুমতিক্রমে একবার জানাযার নামায আদায় হয়ে গেলে দ্বিতীয় বার জানাযার নামায পড়া নাজায়েয মাকরুহে তাহরীমি ও বিদআত। তবে প্রথমবার যদি অভিভাবকের অনুমতি ছাড়া জানাযার নামায পড়া হয়ে থাকে এবং অভিভাবক নিজে তাতে অংশ গ্রহণ না করে থাকে এবং জানাযার প্রথম জামাত অভিভাবকের চেয়ে যোগ্য এমন মহল্লা মসজিদের ইমাম না পড়িয়ে......

বিস্তারিত»

জানাযা নামাযে তিন বা পাঁচ তাকবীর বলে ফেললে

জিজ্ঞাসা: কোন ইমাম যদি জানাযা নামাযে তিন তাকবীর বলে নামায শেষ করে দেয়, অথবা পাঁচ তাকবীর বলে নামায শেষ করে তাহলে ঐ নামাযের বিধান কী? জবাব: জানাযা নামাযে ইমাম সাহেব যদি তিন তাকবীর বলে নামায শেষ করে দেয়, তাহলে তার নামায নষ্ট হয়ে যাবে। সাথে সাথে মুক্তাদীর নামাযও নষ্ট হয়ে যাবে। পক্ষান্তরে, ইমাম যদি চার তাকবীরের পর ৫ম তাকবীর দিয়ে......

বিস্তারিত»

জানাযা নামাযের তৃতীয় তাকবীরের পর প্রচলিত দু‘আর সাথে অন্য দু‘আ পড়া

জিজ্ঞাসা: জানাযার নামাযে তৃতীয় তাকবীরের পর প্রচলিত দু‘আর সাথে যোগ করে যদি আরবীতেই মৃত ব্যক্তির জন্য অতিরিক্ত আরো দু‘আ করা হয়, তাহলে কি তা জায়েয হবে? এক আলেমের নিকট শুনেছি তা জায়েয, বরং তিনি উত্তমও বলেছেন। তার কথা কতটুকু সঠিক? জবাব: প্রিয়নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম থেকে জানাযা নামাযের তৃতীয় তাকবীরের পর বিভিন্ন দু‘আ পড়ার কথা বর্ণিত আছে। তাই সেখানে সুনির্দিষ্ট......

বিস্তারিত»

আত্তাহিয়্যাতু, দুরুদ শরীফ ইমামের আগে শেষ হলে কী করবে?

জিজ্ঞাসা: ইমামের আগে মুক্তাদীর আত্তাহিয়্যাতু, দুরুদ শরীফ ও দু‘আয়ে মাসূরা শেষ হয়ে গেলে ঐ মুক্তাদী কি পূর্ণ আত্তাহিয়্যাতু পড়বে বা পড়তে পারবে? না কি চুপ থাকবে। আর মাসবুক ব্যক্তি আত্তাহিয়্যাতু শেষ করার পর সালামের পূর্ব পর্যন্ত কি কিছু পড়তে পারবে, না কি সে চুপ থাকবে? জবাব: ইমামের আগে যদি মুক্তাদীর প্রথম বৈঠকে আত্তাহিয়্যাতু পড়া শেষ হয়ে যায় এবং শেষ বৈঠকে......

বিস্তারিত»

তাশাহহুদ পড়ার সময় শাহাদাত আঙ্গুল দ্বারা ইশারা করা

জিজ্ঞাসা: নামাযের বৈঠকে তাশাহহুদ পড়ার সময় যে শাহাদাত আঙ্গুল দ্বারা ইশারা করা হয়। শরীয়তের দৃষ্টিতে এর হুকুম কী? জবাব: নামাযের মধ্যে তাশাহহুদ পড়ার সময় শাহাদাত আঙ্গুল দ্বারা ইশারা করার বিষয়টি বহু হাদীস দ্বারা প্রমাণিত আছে। তাই ফুকাহায়ে কিরাম এটাকে সুন্নত বলে উল্লেখ করেছেন। সূত্র: সহীহ মুসলিম : ১/২১৬, ফাতহুল মুলহিম : ৩/১৩৮, সুনানে বাইহাকী: ২/১৩২, মুআত্তা মুহাম্মাদ : ১০৮, আদ্দুররুল......

বিস্তারিত»

ইমামের সাথে কতটুকু নামায পেলে তাকবীরে উলার সওয়াব পাওয়া যাবে?

জিজ্ঞাসা: তাকবীরে উলার সওয়াব পাওয়ার জন্য নামাযের কোন অংশ থেকে শরীক হওয়া জরুরী? জবাব: তাকবীরে উলার সীমারেখা নিয়ে ফুকাহায়ে কিরামের মধ্যে মতানৈক্য রয়েছে। তবে অধিক নির্ভরযোগ্য উক্তি অনুযায়ী সূরা ফাতেহা পর্যন্ত সময় তাকবীরে উলার অন্তর্ভুক্ত। অবশ্য, কেউ কেউ প্রথম রাকাত পর্যন্ত তাকবীরে উলা সংক্রান্ত উক্তিটিকে বিশুদ্ধ বলে উল্লেখ করেছেন। তবে এ উভয় উক্তির কোন একটি অনুসরণ করলেই তাকবীরে উলার ফযীলত......

বিস্তারিত»

মহিলাদের নামাযে দাঁড়ানোর পদ্ধতি

জিজ্ঞাসা: মহিলারা নামাযে দাঁড়ানোর সময় দু পা মিলিয়ে রাখবে? না কি দুই পায়ের মাঝে ফাঁকা রাখবে? যদি ফাঁকা রাখতে হয় তাহলে কী পরিমাণ ফাঁকা রাখতে হবে। বিস্তারিত জানিয়ে বাধিত করবেন। জবাব: নামাযে দাঁড়ানোর মুস্তাহাব তরীকা হল, উভয় পায়ের মাঝে চার আঙ্গুল পরিমাণ ফাকা রাখা। এক্ষেত্রে পুরুষ ও মহিলাদের নামাযে কোন পার্থক্য নেই। যদিও অনেক ক্ষেত্রে পুরুষ ও মহিলার নামাযে পার্থক্য......

বিস্তারিত»

শবে বরাত ও শবে কদরে ইবাদতের নিয়ম

জিজ্ঞাসা: শবে বরাত ও শবে কদরে বিশেষভাবে সওয়াবের নিয়্যতে গোসল করা এবং যে সমস্ত লোকেরা দৈনিক পাঁচ ওয়াক্ত নামাযের ইহতেমাম করে না তাদের জন্য আবশ্যকীয়ভাবে ইবাদতের উদ্দেশ্যে মসজিদে জমা হওয়া শরীয়ত সম্মত কি না? এবং উক্ত রজনীতে বিশেষ পদ্ধতিতে কোন নামায আছে কি না? না কি অন্যান্য নফল নামাযের ন্যায় নিয়্যত করে নামায পড়লেই এবং কুরআন তিলাওয়াত, তাসবীহ তাহলীল ও......

বিস্তারিত»

ইমামের সাহু সিজদার সালামের সাথে মাসবুকের সালাম ফিরানো সংক্রান্ত মাসআলায় ফাতাওয়ায়ে উসমানী ও ইমদাদুল আহকামের বাহ্যিক বৈপরীত্ব নিরসণ

জিজ্ঞাসা: মাসবুক ব্যক্তির জন্য ইমামের সিজদায়ে সাহুর মধ্যে কী করণীয়? এই প্রসঙ্গে আল্লামা তকী উসমানী সাহেব দা. বা. তার কিতাব “ফাতাওয়ায়ে উসমানী”র (খ. ১ পৃ. ৪৫৮) মধ্যে বলেছেন, মাসবুক ব্যক্তির জন্য সিজদায়ে সাহুর মধ্যে ইমাম সাহেবের সাথে সালাম না ফিরানো উচিত, তবে সিজদা করা জরুরী। ইমদাদুল আহকাম (১ম খন্ড, পৃ. ৫৪৬) এর মধ্যে মাসালাটি এমন, মাসবুক ব্যক্তি যদি ভুলে ইমামের......

বিস্তারিত»

সুতরার উচ্চতার পরিমাণ

জিজ্ঞাসা: নামাযী ব্যক্তির সামনে যে সুতরা রাখা হয়, তা কি এক হাত পরিমাণ লম্বা হতে হবে না কম হলেও চলবে? যদি কম হলেও চলে তাহলে মাদরাসার ট্রাংক যার উচ্চতা অর্ধ হাত বা তার চেয়েও কম হয়, তা সুতরা হিসেবে রাখলে চলবে কি না? জবাব: নামাযী ব্যক্তির সামনে যে সুতরা রাখা হয়, তার উচ্চতা এক হাত পরিমাণ হতে হবে। এর থেকে......

বিস্তারিত»

লুঙ্গি, টাউজার পরিধান করে নামায পড়া?

জিজ্ঞাসা: কোন ব্যক্তি লুঙ্গি ও টাউজার পরিধান করে নামায পড়ল, এমনভাবে যে তার লুঙ্গি টাখনুর উপর আর তার টাউজার টাখনুর নিচে। এমতাবস্থায় তার নামাযের হুকুম কী? জবাব: পুরুষের জন্য টাখনুর নিচে ঝুলিয়ে যে কোন ধরণের কাপড় পরিধান করা সম্পূর্ণ হারাম ও কবীরা গুনাহ। আর এরূপ কবীরা গুনাহ করা অবস্থায় নামায আদায় করা আরো মারাত্মক গুনাহ। কাজেই, টাখনুর নিচে টাউজার পরা......

বিস্তারিত»

নামাযে মহিলার সতরের পরিমান

জিজ্ঞাসা: নামাযে মহিলার সতর কতটুকু অর্থাৎ নামায পড়া অবস্থায় মহিলার অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ কতটুকু আবৃত করা আবশ্যক ? জবাব: মহিলাদের জন্য নামাযের মধ্যে দুই হাত, দুই পা ও চেহারা ব্যতীত সমস্ত শরীর আবৃত করে রাখা জরুরী। কারণ, এগুলো তার সতরের অন্তর্ভূক্ত। সুতরাং নামাযের মধ্যে যদি কোন মহিলার উল্লেখিত তিনটি অঙ্গ ব্যতীত অন্য কোন অঙ্গের এক চতুর্থাংশ বা তার চেয়ে বেশি তিন তাসবীহ......

বিস্তারিত»

যোহরের পুর্বের সুন্নত ৪ রাকাত

জিজ্ঞাসা: যোহরের পুর্বের সুন্নাতে মুআক্কাদাহ কি হুজুর সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম সব সময় ৪ রাকাতই পড়েছেন না কি কখনো ২ রাকাতও পড়েছেন? জবাব: হুজুর সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যোহরের ফরযের পুর্বে ৪ রাকাত সুন্নত নামায আদায় করেছেন বলে সহীহ হাদীস দ্বারা প্রমাণিত। অনুরূপভাবে, তিনি ২ রাকাত সুন্নাত আদায় করেছেন বলেও সহীহ হাদীস দ্বারা প্রমাণিত আছে। তবে হানাফীগণ ৪ রাকাত সুন্নাত পড়ার রেওয়ায়েতকেই......

বিস্তারিত»

সালাতুত তাসবীহ আদায়ের নিয়ম

জিজ্ঞাসা: সালাতুত তাসবীহ আদায়ের নিয়ম কী? জবাব: সালাতুত তাসবীহ আদায়ের দুটি নিয়ম রয়েছে, তন্মধ্যে ১ম নিয়মটি হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আব্বাস রা. থেকে মারফু রিওয়ায়াতে বর্ণিত আছে এবং এটাই কোন কোন হানাফী ইমাম ও আকাবেরের নিকট অধিক পছন্দীয়। নিয়মটি হলোঃ এক সালামে ৪রাকাত বিশিষ্ট নামাযের নিয়্যত করে তাকবীরে তাহরীমা বলে হাত বাঁধার পর সুরা ফাতেহা ও কিরাতের পর রুকুর আগে নিম্ন......

বিস্তারিত»

দু‘আয়ে কুনূত পড়তে ভুলে গেলে

জিজ্ঞাসা: কোন ব্যক্তি যদি ভুলে দু‘আয়ে কুনুত না পড়ে রুকুতে চলে যায়, এবং রুকুতে স্মরণ হয় তাহলে তার করণীয় কী? জবাব: যদি কোন ব্যক্তি ভুলে দু‘আয়ে কুনুত না পড়ে রুকুতে চলে যায়, অতপর স্মরণ হয়, তাহলে ঐ ব্যক্তি কুনুত পড়ার জন্য পুনরায় রুকু ছেড়ে দাঁড়াবে না এবং রুকুতেও দু‘আয়ে কুনুত পড়বে না। কারণ, এমতাবস্থায় তার থেকে ঐ কুনুত রহিত হয়ে......

বিস্তারিত»

ভূমি, পাহাড়, সাগর পথে সফরের দুরত্বের পরিমাণ কি সমান?

জিজ্ঞাসা: যতটুকু দুরত্বে গেলে সফরের হুকুম আসে, তা সমতল ভুমি, পাহাড়, সাগর, সবখানে কি সমান? জবাব: সমতলভুমি, পাহাড় সাগর ইত্যাদি পথে সফর করার ক্ষেত্রে সফরের শরঈ হুকুম প্রযোজ্য হওয়ার জন্য নিজ নিজ পথে প্রচলিত চলাচল অনুযায়ী শরীয়ত কর্তৃক স্বাভাবিক গতিতে কমপক্ষে তিন দিনের দুরুত্বে সফর করাকে নির্ধারণ করা হয়েছে। তবে সমতল ভুমিতে তিনদিনের দুরত্বকে সহজে বুঝানোর জন্য ৪৮ মাইল বলে......

বিস্তারিত»

মাসবুক ব্যক্তি ভুলক্রমে ইমামের সাথে সালাম ফিরিয়ে ফেললে

জিজ্ঞাসা: যদি কোন মাসবুক ব্যক্তি ভুলক্রমে ইমামের সাথে সালাম ফিরায়। অতপর স্মরণে আসার পর বাকি নামায আদায় করে, তাহলে সাহু সিজদা করতে হবে কি না? জবাব: যদি কোন মাসবুক ব্যক্তি ভুলক্রমে ইমামের সাথে কিংবা আগে সালাম ফিরিয়ে ফেলে অর্থাৎ ইমামের “আস সালামু” শব্দের মীম উচ্চারণ করার সাথে সাথে কিংবা তারও পুর্বে সালাম ফিরিয়ে ফেলে তাহলে তার সাহু সিজদা করতে হবে......

বিস্তারিত»

নামাযী ব্যক্তি শেষ বৈঠক করে সালাম না ফিরিয়ে দাঁড়িয়ে আবার বসে গেলে কিভাবে সিজদায়ে সাহু করবে?

জিজ্ঞাসা: কেউ শেষ বৈঠক করার পর দাঁড়িয়ে গেছে। অতঃপর সে নিজের ভুল বুঝতে পেরে কিংবা মুক্তাদীর লোকমা পেয়ে বসে গেছে। এখন তাকে সিজদায়ে সাহু করতে হবে কি না? করলে আত্তাহিয়্যাতু আবার পড়ে করবে? না কি বসেই আত্তাহিয়্যাতু না পড়ে করবে। জবাব: প্রশ্নোক্ত অবস্থায় আত্ত্যাহিয়্যাতু না পড়ে শুধু ডান দিকে সালাম ফিরিয়ে সিজদায়ে সাহু করবে। তবে কেউ যদি পুনরায় আত্তাহিয়্যাতু পড়ে......

বিস্তারিত»

চিল্লার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়ে কাকরাইল এসে কসর পড়া

জিজ্ঞাসা: এক ব্যক্তি চিল্লা যাওয়ার উদ্দেশ্যে স্বীয় বাসস্থান থেকে রওয়ানা হয়েছে। জানা তো নেই যে, জামাত কোন জেলায় পড়ে, তাই সে নিজ এলাকা অতিক্রম করার পর থেকে কসর পড়ছে। পথিমধ্যে জামাতবন্দি হওয়ার জন্য ২/৩ দিন কাকরাইলে যাত্রা বিরতি করেছে এবং কসর পড়তে থেকেছে। যদিও তার বাসস্থান থেকে কাকরাইল পর্যন্ত গন্তব্য সফরের দুরত্ব নয়। পরবর্তীতে দেখা গেল, তাকে ঢাকা শহরে রোখ......

বিস্তারিত»

তাবলীগের সফরের ৪৮ মাইল দুরে অবস্থানকালে ফরজ নামাজের বিধান প্রসঙ্গে

জিজ্ঞাসা: প্রচলিত যে তাবলীগ জামাত রয়েছে তাদের কোন একটি জামাত যখন ৪৮ মাইল দূরে গিয়ে কোন মসজিদে অবস্থান করে। অতঃপর এক মসজিদে ৩/৪ দিন অন্য মসজিদে ৩/৪দিন অবস্থান করতে থাকে। এভাবে ৪০ দিন অতিবাহিত করে। এমতাবস্থায় তারা মুসাফির হবে না মুকীম ? জবাব:প্রশ্নের বিবরণ অনুযায়ী কোন তাবলীগ জামাত যদি ৪৮ মাইল দূরে অবস্থিত নির্দিষ্ট কোন এক গ্রাম বা এক শহরের......

বিস্তারিত»

নিজ এলাকা ছেড়ে অন্য কোথাও বাড়ী বানানোর ইচ্ছায় গমণ করলে সেখানে মুসাফির, না মুকীম?

জিজ্ঞাসা: এক ব্যক্তি নিজের এলাকা ছেড়ে অন্য কোথাও বাড়ী বানানোর জন্য জমি ক্রয় করে এবং বাড়ী বানানোর কাজ শুরু করে। এই ইচ্ছা করে যে, সে তার পরিবারসহ সেখানে থাকবে। কিন্তু এখনো সে বা তার স্ত্রী কেউ সেখানে থাকে না। আরো এক বৎসর পর সেখানে তারা নিয়মিত থাকবে। এখন জিজ্ঞাসা হল, উক্ত ব্যক্তি যদি সেখানে কাজ করানোর জন্য যায়, তাহলে সে......

বিস্তারিত»

মুসাফিরের ওপর কখন থেকে সফরের হুকুম শুরু হবে এবং কখন শেষ হবে?

জিজ্ঞাসা: মাদরাসা ছুটির পর আমি যখন ঢাকা থেকে আমার বাড়ী গাইবান্ধা যাই, তখন আমি রাস্তায় মুসাফির থাকি। জিজ্ঞাসা হলো- মাদরাসা থেকে বের হওয়ার সাথে সাথে আমার উপর মুসাফিরের হুকুম আরোপিত হবে? না ঢাকা অতিক্রম করার পর? অনুরূপভাবে, বাড়িতে পৌঁছার পর মুসাফিরের হুকুম শেষ হবে নাকি নিজ শহরের সীমানায় প্রবেশ করার সাথে সাথে শেষ হবে? জবাব:স্বীয় বাসস্থান থেকে ৪৮ মাইল দুরত্বে......

বিস্তারিত»

অসুস্থ অবস্থায় মারা গেলে ছুটে যাওয়া নামাযের কাফফারা আদায়ের হুকুম

জিজ্ঞাসা: অসুস্থ অবস্থায় মারা গেলে যে নামাযগুলো আদায় করতে পারে নি, সেগুলোর কি কোন কাফফারা আদায় করতে হবে? জবাব: অসুস্থতা যদি এতটাই মারাত্মক হয় যে, ইশারা করেও নামায আদায় করার সামর্থ নেই। এমতাবস্থায় যদি কারো কিছু নামায ছুটে যায় এবং এ অবস্থায়ই মৃত্যু বরণ করে, তাহলে ঐ নামাযগুলো তার জিম্মা থেকে রহিত হয়ে যাবে, কাযা করার প্রয়োজন নেই। পক্ষান্তরে, অসুস্থতা......

বিস্তারিত»

সাহেবে তারতীব ব্যক্তির ছয় ওয়াক্ত নামাযের পর কাযা আদায় করা

জিজ্ঞাসা: এক সাহেবে তারতীব ব্যক্তির ফজরের নামায কাযা হয়েছে। এখন সে ফজর না পড়ে একাধারে ছয় ওয়াক্ত নামায পড়ে নেয়। অতপর সে ঐ ফজরের নামায কাযা করে। জিজ্ঞাসা হল, সে যদি ঐ ছয় ওয়াক্তের কোন ওয়াক্তে ইমামতি করে তাহলে মুক্তাদীগণের নামাযের হুকুম কী? অনুরূপভাবে, সে যদি ঐ দিনের আসরের নামাযের ইমামতি করার পর ফযরের কাযা নামায পড়ে তাহলে মুক্তাদীগণের নামাযের......

বিস্তারিত»

মাসবুক কখন সানা পড়বে?

জিজ্ঞাসা: মাসবুক সানা কখন পড়বে? ইমামের সাথে শরীক হওয়ার সময় না কি নিজের অবশিষ্ট নামায পূর্ণ করার সময়? জবাব: মাসবুক যখন ইমামের সাথে শরীক হবে, তখন যদি ইমাম সাহেব উচ্চস্বরে কেরাত পড়তে থাকেন, চাই সেই কেরাত শুনা যাক বা না যাক, তাহলে মাসবুক তার তাকবীরে তাহরীমার পর সানা পড়বে না। আর যদি ইমাম সাহেব নিম্নস্বরে  কিরাত পড়তে থাকেন, তাহলে মাসবুক......

বিস্তারিত»

নামাযে মাসবুক ব্যক্তিকে খলীফা বানানো

জিজ্ঞাসা: মাসবুক ব্যক্তিকে নামায পূর্ণ করার জন্য খলীফা তথা ইমাম বানানো যাবে কি না? জবাব: নামাযের মধ্যখানে ইমামের উযু ছুটে গেলে তার জন্য উত্তম হল, মাসবুক ব্যক্তিকে খলীফা না বানানো। আর মাসবুক ব্যক্তির জন্যও উচিত হলো, তাকে খলীফা বানাতে চাইলে তাতে সম্মত না হওয়া। কারণ, ইমামের জন্য যা কিছু করণীয় তা সে পূর্ণ করতে অক্ষম। তবে যদি মাসবুককে খলীফা বানিয়েই......

বিস্তারিত»

বেনা করার উদ্দেশ্যে উযু করতে গিয়ে ইস্তিঞ্জা করে ফেললে বেনা করতে পারবে কি না?

জিজ্ঞাসা: নামাযের মধ্যে যদি কারো বায়ু নির্গত হওয়ার কারণে সে বেনা করার জন্য উজু করতে চলে যায় এবং সেখানে গিয়ে ইস্তিঞ্জা করার পর উজু করে ফিরে আসে তাহলে কি সে বেনা করতে পারবে? জবাব: নামাযের মধ্যে কারো বায়ু নির্গত হওয়ার কারণে যদি সে উজু করতে চলে যায় এবং সেখানে গিয়ে ইস্তিঞ্জা করার পর উজু করে ফিরে আসে, তাহলে সে বেনা......

বিস্তারিত»

ঈদের নামায পড়েই খুতবার আগে জানাযা পড়া

জিজ্ঞাসা: আমাদের গ্রামে ঈদের নামায পড়েই জানাযার নামায পড়া হয়। অতপর খতীব সাহেব খুতবা প্রদান করেন। আমি জানতে চাচ্ছি, আমাদের ঈদের নামায হয়েছে কি না? একজন আলেম বলেছেন: ঈদের নামাযের খুতবা প্রদান করার পুর্বে জানাযার নামায আদায় করার কারণে উক্ত ঈদের নামায আদায় হয়নি; পুনরায় তা আদায় করতে হবে। উক্ত আলেমের কথা কতটুকু সঠিক? তা জানিয়ে বাধিত করবেন। জবাব: উল্লেখিত......

বিস্তারিত»

ঈদের নামাযের অতিরিক্ত তাকবীর বা প্রথম রাকাত ছুটে গেলে

জিজ্ঞাসা: আমি একজন সাধারণ মুসল্লী। কিন্তু ঈদ যেহেতু বৎসরে দুটি আসে, তাই নামাযে সমস্যা হয়। আমি গত ঈদের নামাযের প্রথম রাকাত পাইনি এবং আমার এক সাথী ভাই প্রথম রাকাতের অতিরিক্ত তাকবীর পায়নি। এখন আমাদের নামাযের হুকুম কী? এবং কিভাবে নামায শেষ করব? জবাব: কারো যদি ঈদের নামাযের এক রাকাত ছুটে যায়, তাহলে তার জন্য করণীয় হল, ছুটে যাওয়া রাকাত এভাবে......

বিস্তারিত»

লাঠি হাতে খুতবা দেয়া

জিজ্ঞাসা: খুৎবার সময় ইমাম সাহেবের হাতে লাঠি নেয়ার হুকুম কী? জবাব: খুতবা দেয়ার সময় খতীবের জন্য হাতে লাঠি রাখার ব্যাপারে ফুকাহায়ে কেরাম থেকে পরস্পর বিরোধী বক্তব্য পাওয়া যায়। সে সব বক্তব্যের মধ্যে উলামায়ে কেরাম এ ভাবে সামঞ্জস্য বিধান করেছেন যে, খুতবা দেয়ার সময় খতীবের জন্য হাতে লাঠি রাখা সুন্নাতে গাইরে মুয়াক্কাদা বা মুস্তহাব। অর্থৎ জরুরী বা আবশ্যকীয় বিষয় নয়। সুতরাং......

বিস্তারিত»

জুমআর খুতবার পর ইকামতের পূর্বে কথা বলা

জিজ্ঞাসা: জুম‘আর খুতবার পর ইকামতের পূর্বে কথা বলার হুকুম কী? জবাব: জুমআর খুতবার পর দুনিয়াবী কোন কথা বা কাজের কারণে ইকামত দিতে বিলম্ব করা মাকরূহ। অবশ্য, নামাযের সাথে সংশ্লিষ্ট বা পরকালীন কোন কথা বা কাজের কারণে ইকামত দিতে বিলম্ব হলে মাকরূহ হবে না।আর দীর্ঘ সময় বিলম্ব হলে পুনরায় খুৎবা দেওয়া জরুরী। উল্লেখ্য, কতটুকু সময় বিলম্ব হলে দীর্ঘ বিলম্ব হয়েছে বলে......

বিস্তারিত»

সংরক্ষিত স্থানে জুম‘আর নামায পড়া

জিজ্ঞাসা: যেখানে সর্বসাধারনের প্রবেশের অনুমতি নেই যেমন: বাংলাদেশের বঙ্গভবন, প্রধান মন্ত্রীর কার্যালয় ইত্যাদি সংরক্ষিত স্থানে জুমার নামাজ শুদ্ধ হবে কি না ? জবাব:হ্যাঁ বাংলাদেশের বঙ্গ ভবন, গন ভবন, প্রধান মন্ত্রীর কার্যালয়, এয়ারপোর্ট, কারাগার সহ অন্যান্য সংরক্ষিত স্থানের জুমার নামাজ আদায় করা শুদ্ধ হবে যদি ঐ সকল স্থানের অভ্যন্তরীন সকল বাসিন্দাদের জন্য জুমার নামাজ আদায় করার অনুমতি থাকে। সূত্র: আদ দুররুল......

বিস্তারিত»

জুম‘আর নামাযের মুস্তাহাব ওয়াক্ত

জিজ্ঞাসা: জুমআর মুস্তাহাব ওয়াক্ত কোনটি? জবাব: হানাফী মাযহাব অনুযায়ী জুম‘আর নামায যোহরের আওয়াল ওয়াক্তে আদায় করা মুস্তাহাব। গ্রীষ্মকালে যোহরের নামায বিলম্ব করে আদায় করার বিধান জুম‘আর ক্ষেত্রে প্রযোজ্য নয়। কাজেই, যোহরের ওয়াক্ত হওয়ার সাথেই সাথেই বিলম্ব না করে জুম‘আর নামায আদায় করে নেয়া উচিত। সূত্র: আদ্দুররুল মুখতার : ১/৩৬৭, শামী: ১/৩৬৭, আল মুহীতুল বুরহানী: ২/১৮০, সহীহ বুখারী: ১/১২৩, সহীহ মুসলিম......

বিস্তারিত»

জুম‘আর কোন খুতবায় দু‘আ করবে?

জিজ্ঞাসা: জুম‘আর প্রথম খুতবায় সমস্ত মুসলিম জাতির জন্য দু‘আ করবে না কি দ্বিতীয খুতবায়? জবাব: জুমআর দ্বিতীয় খুতবায় সমস্ত মুসলিম জাতির জন্য দু‘আ করা সুন্নত, প্রথম খুতবায় নয়; বরং তা সুন্নত পরিপন্থী। সূত্র: বাদায়েউস সানায়ে : ১/৫৯১, ফাতাওয়া হিন্দিয়া : ১/১৪৮, রদ্দুল মুহতার : ২/১৫৯, মারাকিল ফালাহ : ১/৫১৬, হাশিয়াতুত তাহতাবী : ১/৩৪৩ في رد المحتار ২/১৪৯ والثانية كالأولى إلا......

বিস্তারিত»

তারাবীহর নামাযে ছুটে যাওয়া আয়াতসমূহ দোহরানো

জিজ্ঞাসা: তারাবীহর নামাযে কোন কোন হাফেয সাহেব বিভিন্ন স্থান থেকে ছুটে যাওয়া আয়াতগুলো পড়ার পর ধারাবাহিক কেরাত শুরু করে থাকেন। জানার বিষয় হলো, উক্ত নামাযের হুকুম কী? জবাব: প্রশ্নোল্লেখিত অবস্থায় হাফেয সাহেবগণের নামায জায়েয হয়ে যাবে এবং মাকরূহও হবে না। অবশ্য, ছুটে যাওয়া আয়াতগুলো পড়ার নিয়ম হলো, যেখানে জানা যাবে যে, কিছু আয়াত ছুটে গেছে, সেখানে প্রথমে ছুটে যাওয়া আয়াত......

বিস্তারিত»

মহিলাদের জন্য খতমে তারাবীহর জামাতে শরীক হওয়া

জিজ্ঞাসা: মহিলাদের খতমে তারাবীহর জামাতে শরীক হওয়া জায়েয কি না? জবাব: মহিলাদের জন্য মসজিদে গিয়ে খতমে তারাবীহসহ সকল নামাযের জামাতে শরীক হওয়া মাকরূহে তাহরীমি ও নাজায়েয। কারণ, মহিলাদের জন্য সর্বাবস্থায়ই নিজ ঘরের অন্দর মহলে একাকী নামায আদায় করা উত্তম। হাদীস শরীফে মহিলাদের এ ব্যাপারে উৎসাহিত করা হয়েছে। অবশ্য, যদি মসজিদে না গিয়ে নিজ বাড়িতে হাফেজদের পিছনে খতমে তারাহীর নামায আদায়......

বিস্তারিত»

তারাবীর নামাযে অস্পষ্ট তিলাওয়াত করা

জিজ্ঞাসা: তারাবীহর মধ্যে কুরআন দ্রুত পড়ার কারণে যদি কুরআনের শব্দ স্পষ্ট বুঝা না যায়, অথবা ওয়াকফের স্থানে যদি তাজবীদ অনুযায়ী ওয়াকফ না হয়, তাহলে মুক্তাদীদের কুরআন খতমের সওয়াব হবে কি না এবং এভাবে নামাযে কুরআন পড়ার কী হুকুম? জবাব: তারাবীর নামায বা অন্য কোন নামাযে যদি এমনভাবে তিলাওয়াত করা হয় যে, কুরআনের কোন শব্দ বা আয়াত বুঝা যায় না তাহলে......

বিস্তারিত»

তারাবীর নামাযে অস্পষ্ট তিলাওয়াত করা

জিজ্ঞাসা: তারাবীহর মধ্যে কুরআন দ্রুত পড়ার কারণে যদি কুরআনের শব্দ স্পষ্ট বুঝা না যায়, অথবা ওয়াকফের স্থানে যদি তাজবীদ অনুযায়ী ওয়াকফ না হয়, তাহলে মুক্তাদীদের কুরআন খতমের সওয়াব হবে কি না এবং এভাবে নামাযে কুরআন পড়ার কী হুকুম? জবাব: তারাবীর নামায বা অন্য কোন নামাযে যদি এমনভাবে তিলাওয়াত করা হয় যে, কুরআনের কোন শব্দ বা আয়াত বুঝা যায় না তাহলে......

বিস্তারিত»

তারাবীর নামায পড়িয়ে বিনিময় গ্রহণ করা

জিজ্ঞাসা: আমরা জানি اجرة علي الطاعة তথা ইবাদতের বিনিময় গ্রহণ করা হানাফী আলেমদের মতে জায়িয নেই। তবে পরবর্তী হানাফীগণ কিছু বিষয়ে জরুরত এর ভিত্তিতে জায়িয হওয়ার ফাতাওয়া দিয়েছেন। আমার জানার বিষয় হল তারাবীর নামায পড়িয়ে টাকা নেওয়া বর্তমানে যে ভাবে ব্যাপক হয়ে গেছে তাতে কি উমূমে বালওয়া বা ব্যাপক লিপ্ততা এর ভিত্তিতে তারাবীর টাকা জায়িয হওয়ার পক্ষে ফাতওয়া দেওয়া যায়......

বিস্তারিত»

তারাবীর হাফেজকে ২-১ ওয়াক্তের ফরজ নামাযের ইমাম বানিয়ে টাকা দেওয়ার ব্যবস্থা করা

জিজ্ঞাসা: আমাদের মসজিদে আমরা হাফেজ দ্বারা খতমে তারাবীহ পড়ি এবং হাফেজ সাহেবকে খতমের বিনিময় দিয়ে থাকি। কোন কোন মুফতী সাহেব বলেন যে, তা নাজায়েয। আবার কোন কোন আলেম বলেন, ২-১ ওয়াক্ত নামাযের ইমামতি দিয়ে হাফেজ সাহেবকে কিছু হাদিয়া দেওয়া যেতে পারে। আবার কোন কোন আলেম বলেন যে, পাঁচ ওয়াক্ত নামাযের জন্য নির্দিষ্ট বেতন ধারী ইমাম থাকলে হাফেজ সাহেবকে ২-৩ ওয়াক্ত......

বিস্তারিত»

সরকারী মসজিদে তারাবীহর নামায পড়িয়ে বিনিময় গ্রহণ করা

জিজ্ঞাসা: এক ব্যক্তি সরকারী মসজিদে তারাবীহ নামায পড়ায়। ঐ মসজিদে প্রতি বছর তারাবীহর জন্য অতিরিক্ত ইমাম নিয়োগ দেয়া হয় এবং নিয়োগপত্রে লেখা থাকে, তারাবীহর জন্য অতিরিক্ত ইমাম নিয়োগ। এই নিয়োগ পত্রের ভিত্তিতে সরকারের পক্ষ থেকে তারাবীহর ইমামের জন্য বেতন ধার্য করা হয়। ইমামের জন্য এই বেতন গ্রহণ করা জায়েয হবে কি না? জবাব: প্রশ্নে বর্ণিত সুরতে তারাবীর ইমামের জন্য উক্ত......

বিস্তারিত»

ভুলক্রমে সুন্নত না পড়ে ফজরের জামাতে শরীক হলে

জিজ্ঞাসা: এক ব্যক্তি ফজরের সুন্নাত আদায় না করে ভুলক্রমে ফজরের জামাতে ইমামের পিছনে ইক্তিদা করেছে। অতপর তার সুন্নত না পড়ার কথা স্মরণ হয়েছে, এমতাবস্থায় সে কি করবে, জামাত ছেড়ে দিয়ে সুন্নত পড়ে অতপর ফরয পড়বে? নাকি জামাতে নামায চালিয়ে যাবে? জবাব: প্রশ্নে উল্লেখিত ব্যক্তি বর্ণিত অবস্থায় জামাতের সাথে নামায চালিয়ে যাবে। সুন্নত পড়ার জন্য জামাত ছাড়বে না। অবশ্য, সুর্য উঠার......

বিস্তারিত»

অসুস্থতার দরুন ছুটে যাওয়া নামায কাযা করা

জিজ্ঞাসা: অসুস্থতার দরুন কোন ব্যক্তির কয়েক দিনের নামায ছুটে গিয়েছে। অতপর উক্ত নামায আদায় করার পূর্বেই সে মৃত্যু বরণ করেছে। জিজ্ঞাসা হল, এ ব্যক্তির ছুটে যাওয়া নামায সমূহের ফিদয়া দিতে হবে কি না? জবাব: প্রশ্নে বর্ণিত অবস্থায় সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির অসুস্থতা যদি এমন পর্যায়ে পৌঁছে থাকে যে, সে ইশারা দ্বারাও নামায আদায় করতে সক্ষম নয়। তাহলে তার জিম্মা থেকে নামায আদায়ের......

বিস্তারিত»

কাযা নামাযের কাফফারা আদায়ের ক্ষেত্রে কোন মূল্য ধর্তব্য হবে?

জিজ্ঞাসা: কেউ যদি দশ বছর পূর্বের নামায অনাদায়ী থাকার কারণে তার কাফফারা আদায় করতে চায়, তাহলে সেকি বর্তমান বাজার মূল্য হিসাবে কাফফারা দিবে, নাকি দশ বছর পূর্বের মূল্য হিসাবে দিবে? জবাব: দশ বছর পূর্বের অনাদায়ী নামাযের কাফফারা বর্তমানে আদায় করতে চাইলে বর্তমান বাজার মূল্য হিসাবেই আদায় করতে হবে। কেননা, শরীয়াতে কাফফারা বা ফিদইয়া আদায়ের ক্ষেত্রে আদায়ের দিনের মূল্য ধর্তব্য হয়ে......

বিস্তারিত»

ইশার ফরয নামায নষ্ট হয়ে গেছে প্রমাণিত হলে তার সাথে সুন্নত ও বিতির দোহরানো

জিজ্ঞাসা: এক ব্যক্তি ইশার নামায সুন্নতসহ আদায় করার পর জানতে পারে যে, তার ইশার নামায শুদ্ধ হয়নি। এখন কি ইশার নামাযের সাথে সুন্নতকেও দোহরাতে হবে? আর যদি বেতেরও পড়ে থাকে তাহলে বেতেরকেও কি দোহরাতে হবে? জবাব: যদি ইশার নামাযের ওয়াক্ত বাকি থাকে, তাহলে ইশার ফরযের সাথে শুধু সুন্নতকে দোহরাতে হবে বেতেরকে দোহরাতে হবে না। কারণ, ফরজ হলো আসল, আর সুন্নত......

বিস্তারিত»

সাহেবে তারতীব ব্যক্তি যোহরের সুন্নত আদায় করে ফজরের কাযা আদায় করলে

জিজ্ঞাসা: একজন সাহেবে তারতীব ব্যক্তির ফজরের নামায কাযা হয়ে যায়। যোহরের ৪ রাকাত সুন্নত পড়ার পর তার ফজরের কাজার কথা স্মরণ হয়। অতঃপর ফজরের কাযা নামায আদায় করে। জিজ্ঞাসা হলো, কাযা নামাযের কথা ভুলে গিয়ে যোহরের যে সুন্নত আদায় করা হয়েছে, তা কি পুনরায় পড়তে হবে? জবাব: প্রশ্নোক্ত অবস্থায় যোহরের সুন্নত পুনরায় পড়তে হবে না। সূত্র: সহীহ বুখারী: ১/৮৪, সহীহ......

বিস্তারিত»

ফজরের সুন্নত কাযা করা

জিজ্ঞাসা: যদি কেউ ফজরের নামাযের সুন্নত না পড়ে, তাহলে তার কাযা করতে হবে কি না? জবাব: যদি ফজরের ফরয নামাযের সাথে সুন্নতও কাযা হয়ে যায়, তাহলে পশ্চিম দিগন্তে সুর্য হেলে যাওয়ার পূর্বে ফরজ ও সুন্নত উভয় নামায কাযা করে নিবে। আর সুর্য হেলে যাওয়ার পর শুধু ফরজের কাযা করবে; সুন্নতের নয়। পক্ষান্তরে, যদি ফরজ ব্যতীত শুধু ফজরের সুন্নত ছুটে যায়,......

বিস্তারিত»

যোহরের ৪রাকাত সুন্নত ফরজের পুর্বে আদায় করতে না পারলে তার কাযা করা

জিজ্ঞাসা: কেউ যদি কোন কারণে যোহরের ৪রাকাত সুন্নত ফরজের পূর্বে আদায় করতে না পারে তাহলে কি তার কাযা আদায় করতে হবে? যদি কাযা আদায় করতে হয়, তাহলে তা সুন্নত হিসাবে হবে নাকি নফল হয়ে যাবে এবং তা কখন আদায় করবে দুই রাকাত সুন্নতের পূর্বে না পরে? জবাব: কেউ যদি কোন কারণে যোহরের ৪রাকাত সুন্নত ফরজের পূর্বে আদায় করতে না পারে......

বিস্তারিত»

ফজরের জামাত দাঁড়িয়ে যাওয়ার পর সুন্নত পড়া

জিজ্ঞাসা: কোন ব্যক্তি যদি ফজরের সময় মসজিদে এসে দেখে ফজরের জামাত শুরু হয়ে গেছে, এমতাবস্থায় উক্ত ব্যক্তির জন্য করণীয় কী? সে কি ফজরের সুন্নত প্রথমে পড়ে নিবে অতপর জামাতে শরীক হবে? না কি ফজরের সুন্নত না পড়েই জামাতে শরীক হয়ে যাবে? জবাব: প্রশ্নের বর্ণনা অনুযায়ী উল্লেখিত ব্যক্তি যদি ফজরের নামাযের সময় মসজিদে উপস্থিত হয়ে দেখে যে, ফজরের জামা‘আত শুরু হয়ে......

বিস্তারিত»

সুন্নতে মুআক্কাদা আদায় না করার হুকুম

জিজ্ঞাসা: সুন্নাতে মুআক্কাদা আদায় না করার হুকুম কী? কয়েকদিন পুর্বে টেলিভিশনে এক মুফতি সাহেব বলেছেন যোহরের পূর্বের ও পরের সুন্নত আদায় না করলে কোন গুনাহ হবে না। উক্ত মুফতী সাহেবের কথা কতটুকু সঠিক? জবাব: সুন্নতে মুয়াক্কাদাকে অবজ্ঞা ও তুচ্ছ মনে করে ছেড়ে দিলে কাফের হয়ে যাবে। পক্ষান্তরে, অবজ্ঞা ও তুচ্ছ মনে না করে বিনা ওযরে শুধু এমনিতেই অলসতা বশতঃ মাঝে......

বিস্তারিত»

তাহাজ্জুদ নামাযের রাকাত সংখ্যা, আদায়ের উত্তম সময় ও পদ্ধতি

জিজ্ঞাসা: তাহাজ্জুদের নামায কত রাকাত এবং কিভাবে আদায় করতে হবে? এবং তার উত্তম সময় কোনটি? জবাব: তাহাজ্জুদের নামায সংক্রান্ত হাদীসমূহ পর্যালোচনা করলে বুঝা যায় যে, হুজুর সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তাহাজ্জুদের নামায বিভিন্ন সময় বিভিন্ন রাকাত পড়েছেন। তবে সর্বনিম্ন দুই রাকাত আর সর্বোচ্চ বার রাকাতের কথা বর্ণিত আছে। অবশ্য, অধিকাংশ সময় তিনি আট রাকাত পড়েছেন। বিধায়, কোন কোন মুহাক্কিক আলেম সর্বোচ্চ......

বিস্তারিত»

আওয়াবীন নামাযের রাকাত সংখ্যা

জিজ্ঞাসা: আওয়াবীন নামায কত রাকাত? আমরা শুনেছি, চার রাকাত আদায় করলেই নাকি তার ফযীলত হাসিল হয়ে যাবে, কথাটি কতটুকু সহীহ? জবাব: কোন কোন ফকীহের মতে আওয়াবীন নামায মূলত চার রাকাত। মাগরিবের দুই রাকাত সুন্নত এর বাইরে। কাজেই, মাগিরবের দুই রাকাত সুন্নত ছাড়া আরও চার রাকাত পড়ার দ্বারাই এ উক্তি অনুযায়ী আওয়াবীনের ফযীলত হাসিল হয়ে যাবে। তবে অনেক ফুকাহায়ে কেরামের মতে......

বিস্তারিত»

তাহাজ্জুদ নামায সুন্নত না ওয়াজিব?

জিজ্ঞাসা: তাহাজ্জুদ পড়া কি ওয়াজিব না কি সুন্নত? যদি সুন্নত হয়, তাহলে কোন সুন্নত? তাহাজ্জুদ নামায পড়া রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের জন্য কোন পর্যায়ের ছিল? জবাব: তাহাজ্জুদ নামাযের মর্তবা সম্পর্কে উলামায়ে কেরামের মধ্যে মতবিরোধ রয়েছে। কোন কোন আলেমের মতে তা সুন্নতে মুআক্কাদাহ যেহেতু প্রিয় নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম সারাজীবন তা ধারাবহিকভাবে নিয়মিত পড়ে গেছেন। তবে অধিকাংশ উলামায়ে কেরামের মতে তা......

বিস্তারিত»

নামাযের বৈঠকে দু‘আয়ে মাসূরার পর হাদীসে বর্ণিত অন্য দু‘আ পড়া

জিজ্ঞাসা: যদি কোন ব্যক্তি ফরজ বা নফল নামাযে প্রচলিত দু‘আয়ে মাসূরার পর কুরআন হাদীসে বর্ণিত বিভিন্ন দু‘আ দীর্ঘক্ষণ পর্যন্ত পড়ে সালাম ফিরায়, তাহলে কি নামাযের কোন ক্ষতি হবে? জবাব: ফরয বা নফল নামাযে প্রচলিত দু‘আয়ে মাসূরার পর কুরআন হাদীসে বর্ণিত বিভিন্ন দু‘আ দীর্ঘক্ষণ পর্যন্ত পড়ে সালাম ফিরালে নামাযের কোন সমস্যা হবে না। তবে ইমাম সাহেবের জন্য উচিত হলো, দু‘আয়ে মাসূরার......

বিস্তারিত»

তাকবীরে তাহরীমা বলার পুর্বে হাত বাঁধা

জিজ্ঞাসা: কেউ যদি নামাযে তাকবীরে তাহরীমা বলার পূর্বেই হাত বেঁধে ফেলে তাহলে তার নামাযের কোন ক্ষতি হবে কিনা? জবাব: সুন্নত তরীকা হলো, নামাযের শুরুতে প্রথমে দুই হাত কান বরাবর উঠানো অতপর তাকবীরে তাহরীমা বলার পর সাথে সাথে হাত বাঁধা। এখন কেউ যদি তাকবীরে তাহরীমা বলার আগেই নামাযে হাত বেঁধে ফেলে তাহলে তার নামায নষ্ট হবে না। অবশ্য, নিয়মিত এমনটি করলে......

বিস্তারিত»

এক সালামে কত রাকাত নফল পড়া উত্তম?

জিজ্ঞাসা: এক সালামে কত রাকাত নফল পড়া জায়েয? এবং এক সালামে কত রাকাত নফল পড়া মুস্তাহাব? জবাব: নির্ভরযোগ্য বর্ণনা অনুযায়ী দিনে হোক বা রাতে হোক এক সালামে সর্বোচ্চ চার রাকাত নফল নামায পড়া মুস্তাহাব। আর দিনে এক সালামে দুই রাকাত ও রাতে সর্বোচ্চ আট রাকাত পর্যন্ত নফল নাময পড়া মাকরূহ ব্যতীত জায়েয। পক্ষান্তরে, দিনে এক সালামে ৪রাকাতের অধিক ও রাতে......

বিস্তারিত»

দুখুলুল মসজিদ নামাযের হুকুম

জিজ্ঞাসা: মসজিদে প্রবেশ করে যে কোন নামায আদায় করলেই কি দুখুলুল মসজিদ নামাযের সওয়াব পাওয়া যাবে? না কি তা আলাদা ভাবইে এ নিয়্যতে আদায় করতে হবে? আর যদি যে কোন নামায পড়ার দ্বারাই ঐ সওয়াব পাওয়া যায়, তবে কি এই নামাযেরও নিয়্যত করলে সওয়াব পাওয়া যাবে? না কি শুধু নিয়্যত ব্যতিরেকেও যে কোন নামায পড়লেই তাতে দুখুলুল মসজিদ নামাযের সওয়াব......

বিস্তারিত»

দু‘আ কুনুতে ভুল পড়লে

জিজ্ঞাসা: এক ব্যক্তির বিতর নামাযে দু‘আ কুনুত পড়ার ক্ষেত্রে কিছু শব্দ পরিবর্তন হয়ে যায়, তথা আগেরটা পরে পরেরটা আগে হয়ে যায়, বা পারছে না বিধায় কিছু শব্দ রেখে যায়। জিজ্ঞাসা হল, এমতাবস্থায় তার জন্য কী করণীয়? তার কি নামায হয়ে যাবে? না কি হবে না? আর যদি হয়ে যায়, তাহলে কি সাহু সিজদার প্রয়োজন রয়েছে? জবাব: নামাযে দু‘আ কুনুত পড়া......

বিস্তারিত»

দু‘আয়ে কুনূত না পড়ে রুকুতে চলে গেলে

জিজ্ঞাসা: যদি কোন ব্যক্তি বিতির নামাযে ভুলে দু‘আয়ে কুনূত না পড়ে রুকুতে চলে যায় আর রুকু থেকে উঠার পর দাঁড়িয়ে দু‘আয়ে কুনুত পড়ে, তাহলে কি পুনরায় রুকু করতে হবে? এবং এই অবস্থায় দু‘আয়ে কুনুত পড়া উত্তম না কি না পড়া উত্তম? জবাব: যদি কেউ দু‘আয়ে কুনূত পড়তে ভুলে গিয়ে রুকুতে চলে যায়, তাহলে রুকুতে বা রুকু থেকে উঠে দু‘আয়ে কুনুত......

বিস্তারিত»

একাধিক তিলাওয়াতে সিজদার কাযা

জিজ্ঞাসা: আমি অনেক সিজদার আয়াত তিলাওয়াত করেছি। কিন্তু সিজদা করিনি, অতএব, বিগত সিজদাগুলো কিভাবে আদায় করব? এর কাফফারা দিতে হবে কি না? জবাব: সিজদার আয়াত তিলাওয়াত করার সাথে সাথে সিজদা করে নেওয়া মুস্তাহাব। তাই বিলম্ব না করে সাথে সাথে সিজদা আদায় করে নেওয়াই উচিত। কারণ, বিলম্ব করার কারণে সিজদার কথা ভুলে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। আর বাস্তবে কারো ক্ষেত্রে এমনটি ঘটে......

বিস্তারিত»

নাবালেগ বাচ্চা থেকে বালেগ ব্যক্তি কর্তৃক সিজদার আয়াত শ্রবণ করা

জিজ্ঞাসা: যদি কোন নাবালেগ বাচ্চা থেকে সিজদার আয়াত কোন বালেগ ব্যক্তি শ্রবণ করে। তাহলে ঐ বালেগ ব্যক্তির কী হুকুম? সে সিজদা করবে কি না? জবাব: যদি কোন বুঝমান নাবালেগ শিশু থেকে কোন বালেগ ব্যক্তি সিজদার আয়াত শ্রবণ করে, তাহলে ঐ বালেগ ব্যক্তির উপর সিজদা করা ওয়াজিব। পক্ষান্তরে, শিশু যদি বুঝমান না হয়, তবে তার তিলাওয়াত করার দ্বারা শ্রোতার উপর তিলাওয়াতে......

বিস্তারিত»

ফরজ নামাযের ৩য় ও ৪র্থ রাকাতে সুরা মিলানোর কারণে সাহু সেজদাহ দিতে হবে কি না?

জিজ্ঞাসা: ৪ রাকাত বা ৩ রাকাত বিশিষ্ট নামাযে ইমাম সাহেব যদি শেষের দুই রাকাতে কিংবা ৩য় রাকাতে সুরা ফাতেহার সাথে অন্য সুরা মিলিয়ে নেয়, তাহলে তার নামাযের কী হুকুম? এমনিভাবে, কেউ একাধিক নামায পড়লে তার নামাযের কী হুকুম? জবাব: চার রাকাত কিংবা তিন রাকাত বিশিষ্ট ফরয নামাযের শেষ দুই রাকাতে কিংবা তৃতীয় রাকাতে ইমাম সাহেব বা অন্য কেউ যদি সূরায়ে......

বিস্তারিত»

তিলাওয়াতে সিজদা কাযা করা

জিজ্ঞাসা: তিলাওয়াতের সিজদাহ কাযা হয় কি? কেউ সাত/আট বছর যাবত তিলাওয়াতের কোন সিজদা আদায় করেনি এখন সে কয়টি সিজদা আদায় করবে এবং কাযা করার কারণে তার কি গুনাহ হবে? যদি গুনাহ হয়, তাহলে কেমন গুনাহ হবে? জবাব: তিলাওয়াতে সিজদাহ সারা জীবনে অনাদায়ী থেকে না যাওয়ার শর্তে বিলম্বের সাথে ওয়াজিব হয়ে থাকে। অতএব, কোন ব্যক্তি যদি তিলাওয়াতে সিজদাহ সাথে সাথে আদায়......

বিস্তারিত»

১ম বা ৩য় রাকাতে ভুলবশত বসে গেলে

জিজ্ঞাসা: কেউ নামাযের প্রথম বা ৩য় রাকাতে সিজদা থেকে উঠে ভুলে না দাঁড়িয়ে বসে পড়েছে। অতপর লোকমা দেওয়ার কারণে বা নিজে নিজেই স্মরণ হওয়া মাত্র দাঁড়িয়ে গেছে। বসা অবস্থায় এখনো সে কিছুই পড়েনি এতে কি সাহু সিজদা দিতে হবে? জবাব: উল্লেখিত সুরতে বসার পরিমাণ যদি তিন তাসবীহ থেকে কম হয়, তাহলে সিজদায়ে সাহু করতে হবে না এবং নামায সহীহ হয়ে......

বিস্তারিত»

সিজদায়ে সাহু ভুলে গেলে করণীয়

জিজ্ঞাসা: এক ব্যক্তির উপর সিজদায়ে সাহু ওয়াজিব হয়েছে, কিন্তু তিনি শেষ বৈঠকে সিজদায়ে সাহুর কথা ভুলে গিয়ে দুরুদ শরীফ এমন কি দু‘আয়ে মাসূরা পড়ে ফেলেছেন। এমতাবস্থায় সিজদায়ে সাহুর কথা মনে হওয়ায় সে সিজদায়ে সাহু করেছে। তো সিজদায়ে সাহুর পর কি তার আবার আত্তাহিয়্যাতু দুরুদ দু‘আয়ে মাসূরা পড়তে হবে? জবাব: হ্যাঁ, প্রশ্নে উল্লেখিত ব্যক্তিকে শেষ বৈঠকে আত্তাহিয়্যাতু পড়ার পর ভুলবশত দুরুদ......

বিস্তারিত»

তাশাহহুদের জায়গায় সুরা ফাতেহা পড়া

জিজ্ঞাসা: কোন ব্যক্তি নামাযে তাশাহহুদের স্থানে সূরা ফাতিহা পড়ে ফেললে ঐ নামাযের হুকুম কী? জানিয়ে বাধিত করবেন। জবাব: নামাযের মধ্যে বৈঠকে তাশাহহুদ পড়া ওয়াজিব। আর ভুলবশত নামাযের কোন ওয়াজিব তার নির্ধারিত সময় থেকে বিলম্বিত হয়ে গেলে সিজদায়ে সাহু ওয়াজিব হয়। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে যেহেতু তাশাহহুদের স্থানে সুরা ফাতিহা পড়ার ফলে তাশাহহুদ তার নির্ধারিত সময় থেকে বিলম্বিত হয়ে গেছে। তাই......

বিস্তারিত»

সুন্নত নামাযে ভুলে সাহু সিজদা ছুটে গেলে করণীয়

জিজ্ঞাসা: কোন ব্যক্তির যদি আসর ও এশার পুর্বের সুন্নত নামাযে কোন ওয়াজিব ছুটে যায় এবং ভুলে সাহু সিজদাও না করে, তাহলে কি এই নামায পুনরায় পড়তে হবে? জবাব: হ্যাঁ, আসর ও এশার পুর্বের সুন্নত নামাযে কোন ওয়াজিব ছুটে গেলে এবং ভুলে সাহু সিজদা না করলে, ঐ নামায পুনরায় পড়া ওয়াজিব। সত্যায়নঃ মুফতী জহীরুল ইসলাম

বিস্তারিত»

নামাযে ইচ্ছাকৃতভাবে সিজদায়ে সাহু ছেড়ে দেওয়া

জিজ্ঞাসা: কেউ যদি নামাযে ইচ্ছাকৃতভাবে সিজদায়ে সাহু ছেড়ে দেয়, তাহলে কি তার নামায বাতিল হয়ে গেছে একথা বলা হবে, না কি বলা হবে যে, তার নামায হয়ে গেছে, তবে সেজদাযে সাহু ছেড়ে দেয়ার কারণে তার ঐ নামাযকে পুনরায় পড়তে হবে? দয়া করে জানাবেন। জবাব: নামাযে ভুলবশত কোন ওয়াজিব ছুটে গেলে সিজদায়ে সাহু আদায় করা ওয়াজিব। আর নামাযের কোন ওয়াজিব ইচ্ছাকৃতভাবে......

বিস্তারিত»

ওয়াজিব তরক করার পর সিজদায়ে সাহু না করলে ঐ নামাযের হুকুম

জিজ্ঞাসা: কোন ব্যক্তি নামাযে ওয়াজিব তরক করেছে, কিন্তু সে সিজদায়ে সাহু আদায় করেনি, এখন তার উক্ত নামাযের হুকুম কী? জবাব: নামাযে সিজদায়ে সাহু ওয়াজিব হওয়ার পর ইচ্ছাকৃতভাবে তা আদায় না করলে ঐ নামায সংশোধনের কোন সুযোগ নেই, বরং তা পুনরায় ওয়াক্তের মধ্যে দোহরিয়ে নিতে হবে। অন্যথায় গুনাহগার হবে। আর নামাযে ভুলবশত কোন ওয়াজিব ছুটে গেলে সাহু সিজদা করা ওয়াজিব হয়।......

বিস্তারিত»

নামাযে রাকাত বা সিজদা সংখ্যা ভুলে গেলে কিভাবে নামায পড়বে?

জিজ্ঞাসা: এমন স্মরণ শক্তিহীন ব্যক্তি যার রাকাত ও সিজদা সংখ্যা ইত্যাদি কোন কিছুই মনে থাকে না, এমন ব্যক্তি কিভাবে নামায আদায় করবে? জবাব: যে ব্যক্তি এমন স্মরণ শক্তিহীন যে, সে নামায কয় রাকাত পড়েছে বা কয় সেজদা করেছে? তা তার স্মরণ থাকে না। এমতাবস্থায় সে চিন্তা করে তার প্রবল ধারণা অনুযায়ী নামায আদায় করবে। অর্থাৎ যত রাকাত বা যত সিজদার......

বিস্তারিত»

বিতির নামাযে দু‘আয়ে কুনুত না পড়ে রুকুতে চলে গেলে তাকবীর দেয়ার পর পুনরায় দাঁড়িয়ে দু‘আ কুনুতপড়লে করণীয়

জিজ্ঞাসা: যদি বিতিরের নামাযে ইমাম সাহেব ভুলে দু‘আয়ে কুনূত না পড়ে রুকুতে চলে যায়, অতঃপর তাকবীর দেওয়ার পর পুনরায় দাঁড়িয়ে দু‘আয়ে কুনুত পড়ার পর রুকু করে, তাহলে সিজদায়ে সাহু দিতে হবে কি না? জবাব: প্রশ্নে উল্লেখিত সুরতে উক্ত ইমামের সিজদায়ে সাহু করতে হবে। সূত্র: ফাতাওয়া হিন্দিয়া : ১/১১১, আদ্দুররুল মুখতার : ২/৯, হাশিয়াতুত তাহতাবী : ১/২৬২, কেফায়াতুল মুফতী : ৩/৩৮৬,......

বিস্তারিত»

ইমাম সাহেব কোন রাকাতে একটি সিজদা ছেড়ে দিলে

জিজ্ঞাসা: যদি ইমাম সাহেব কোন রাকাতে একটি সিজদা করতে ভুলে যায়, কিন্তু স্মরণ হওয়ার পর মানুষের ফেতনার আশংকায় ঐ সিজদা আদায় না করে নামায শেষ করে ফেলে বা তার পরিবর্তে সিজদা সাহু করে তাহলে তার নামায সহীহ হবে কি না? জবাব: প্রশ্নে বর্ণিত সুরতে নামায সহীহ হবে না; বরং ফাসেদ হয়ে যাবে। কারণ, নামাযের উভয় সিজদা ফরয। আর ফরয ছুটে......

বিস্তারিত»

ঈদের নামাযে অতিরিক্ত তাকবীর ছুটে গেলে সিজদায়ে সাহু করা

জিজ্ঞাসা: আমাদের গ্রামে গত ঈদের নামাযে দ্বিতীয় রাকাতে অতিরিক্ত তাকবীর না দিয়ে ইমাম সাহেব রুকুতে চলে গিয়েছেন এবং অন্য মুসল্লীদের লুকমাও গ্রহণ করেননি। অবশ্য, পরবর্তীতে সিজদায়ে সাহু করেছেন। এমতাবস্থায় নামায সহীহ হয়েছে কি না? এবং ঈদের নামাযে সিজদায়ে সাহু আছে কি না? জবাব: প্রশ্নে উল্লেখিত বিবরণ অনুযায়ী ঈদের নামায আদায় হয়ে গেছে। আর ইদের নামাযে সিজদায়ে সাহুর হুকুম হল, যদি......

বিস্তারিত»

সূরা ফাতেহার স্থানে তাশাহুদ পড়া বা তাশাহুদের স্থানে সুরা ফাতেহা পড়া

জিজ্ঞাসা: আমি অনেক সময় নামাযের বৈঠকে তাশাহহুদ এর স্থানে সুরা ফাতেহা পড়ে ফেলি। আবার কখনো সুরায়ে ফাতেহার স্থানে তাশাহহুদ পড়ে ফেলি। তবে স্মরণ আসার সাথে সাথে ঠিক করে নেই। অতএব, উল্লেখিত নামাযের হুকুম কী ? জবাব: প্রশ্নে বর্ণিত অবস্থায় আপনার ঐ নামাযে সিজদায়ে সাহু করা ওয়াজিব। সুতরাং যদি সিজদায়ে সাহু করে নেন, তাহলে নামায শুদ্ধ হয়ে যাবে। আর যদি সিজদায়ে......

বিস্তারিত»

ফরজ নামাযের তৃতীয় বা চতুর্থ রাকাতে সূরা ফাতেহার সাথে অন্য সূরা মিলিয়ে ফেললে হুকুম কী?

জিজ্ঞাসা: কোন ব্যক্তি যদি ফরজ নামাযের তৃতীয় বা চতুর্থ রাকাতে সূরা ফাতিহার সাথে অন্য কোন সূরা মিলিয়ে ফেলে, তাহলে উক্ত ব্যক্তির নামাযের কী হুকুম? জবাব: উক্ত ব্যক্তির নামাযে কোন সমস্যা হবে না এবং বর্ণিত ভুলের কারণে তার সিজদায়ে সাহু করারও কোন প্রয়োজন নেই। কেননা, যদিও ফরয নামাযের শেষ দুই রাকাতে সুরা ফাতেহার সাথে অন্য কোন সুরা না মিলানো সুন্নত ও......

বিস্তারিত»

ভুলে তাশাহহুদ, দুরুদ শরীফ পড়ে স্মরণ হওয়ার পর পুনঃ ইমামের সাথে সালাম ফিরানো

জিজ্ঞাসা: কোন মুসল্লী যদি শেষ বৈঠকে ভুল বশত ইমামের আগেই তাশাহহুদ ও দুরুদ শরীফ পাঠ করে সালাম ফিরিয়ে ফেলে পরে মনে হল যে, সে ইমামের পিছনে জামাতে নামায পড়ছে তখন সে ইমামের সাথে ২য় বার সালাম ফিরিয়ে নেয়, এমতাবস্থায় তার নামাযের কী হুকুম? জবাব: যদি মুক্তাদী ভুলবশত ইমামের আগেই সালাম ফিরিয়ে নেয়, এবং পরবর্তীতে জামাতের সাথে নামায আদায়ের কথা স্মরণ......

বিস্তারিত»

প্রথম রাকাতে এক সিজদা করে অন্যটি ভুলে ছুটে গেলে পরবর্তী রাকাতে তা আদায় করা

জিজ্ঞাসা: কেউ যদি প্রথম রাকাতে এক সিজদা করে দ্বিতীয় সিজদা করতে ভুলে যায়। অতঃপর দ্বিতীয় বা তৃতীয় রাকাতে তিনটা সিজদা আদায় করে সাহু সিজদা দেয়, তাহলে তার নামায সহীহ হবে কি না? জবাব: প্রশ্নে বর্ণিত সুরতে নামায হয়ে যাবে। সূত্র: আল মুহীতুল বুরহানী : ২/৩০৮, বাদায়েউস সানায়ে : ১/৪০০, ফাতহুল ক্বাদীর : ১/৫১৯, ফাতাওয়া হিন্দিয়া : ১/১২৬ في بدائع الصنائع......

বিস্তারিত»

নীচ তলা পূর্ণ হওয়ার আগে দ্বিতীয় তলায় নামায পড়া

জিজ্ঞাসা: আমরা দোতলায় নামায পড়ি, কিন্তু প্রায় সময় নীচ তলায় ইমাম সাহেবের সাথে মুষ্টিময় কয়েকজন মুসল্লী থাকে। যার কারণে অধিকাংশ কাতার একেবারে খালি থাকে। এখন আমরা যারা দোতলায় নামায পড়ি আমাদের নামাযের হুকুম কী হবে? জবাব: নিয়ম হলো, মসজিদের যে তলায় ইমাম সাহেব দাঁড়াবেন মুক্তাদীও সে তলায় থেকে ইমাম সাহেবের ইকতেদা করবে, অতপর যখন উক্ত তলা ভরে যাবে এবং সেখানে......

বিস্তারিত»

নামাযে মহিলার স্তন প্রকাশ হয়ে গেলে নামায ফাসেদ হবে কি না?

জিজ্ঞাসা: মহিলাদের নামাযের ভিতর যদি স্তন খুলে যায় এবং তা দেখা যায়, তাহলে তার নামায ফাসেদ হবে কি না? জবাব: মহিলাদের জন্য চেহারা, উভয় হাত কব্জি পর্যন্ত ও উভয় পা টাখনু পর্যন্ত এগুলো ব্যতীত সমস্ত শরীর ছতরের অন্তর্ভুক্ত হওয়ায় তা নামাযের মধ্যে ঢেকে রাখা আবশ্যক। কাজেই, উল্লেখিত তিনটি অঙ্গ ব্যতীত অন্য যে কোন অঙ্গের এক চতুর্থাংশ বা তার চেয়ে বেশি......

বিস্তারিত»

এক দিকে সালাম ফিরানোর পর উজু ভেঙ্গে যাওয়া

জিজ্ঞাসা: নামাযের শেষ বৈঠকে একদিকে সালাম ফিরানোর পর অপরদিকে সালাম ফিরানোর পূর্বেই বায়ু দ্বারা এক ব্যক্তির উজু নষ্ট হয়ে যায়। এখন ঐ ব্যক্তির নামাযের ব্যাপারে ফায়সালা কী? জবাব: প্রশ্নোক্ত ক্ষেত্রে ঐ ব্যক্তির জন্য করণীয় হল, ঐ নামায পুনরায় আদায় করে নেয়া। কেননা, বিশুদ্ধ বর্ণনা অনুযায়ী উভয়দিকে “আসসালামু” শব্দটুকু বলা ওয়াজিব। আর প্রশ্নে বর্ণিত ব্যক্তির যেহেতু দ্বিতীয় সালাম বলার আগেই উজু......

বিস্তারিত»