কুরবানীর মান্নতকৃত পশু দ্বারা কুরবানী আদায় ও তার গোস্ত ভক্ষণ করা


[লিখেছেন jibaitunnoor, February 4, 2021 01:44 pm ]

প্রশ্ন:

কেউ যদি এভাবে মান্নত করে যে, এই গরুটি সুস্থ হলে আগামী বৎসর কুরবানী করব, তাহলে তা সুস্থ হওয়ার পর কুরবানী করলে ঐ গোশত দাতা ও তার ধনী আত্মীয়-স্বজন খেতে পারবে কি না? এতে তার ওয়াজিব কুরবানী আদায় হবে কি না? না কি অন্য আরেকটি পশু কুরবানী করতে হবে?

আর যদি এভাবে মান্নত করে যে, পশুটি সুস্থ হলে তা দিয়ে আগামী বৎসর আমার ওয়াজিব কুরবানী করব, তাহলে ঐ পশু কুরবানী করার দ্বারা কি তার ওয়াজিব কুরবানী আদায় হবে না কি অন্য আরেকটি প্রাণী কুরবানী করতে হবে?

উত্তর:

কোন ধনী ব্যক্তি যদি এভাবে মান্নত করে যে, এই গরুটি সুস্থ হলে আগামী বৎসর তা দিয়ে কুরবানী করব, তাহলে কুরবানীর দিন ঐ গরু কুরবানী করার দ্বারা তার ওয়াজিব কুরবানী আদায় হবে না; বরং তার জন্য দুটি পশু কুরবানী করতে হবে। একটি মান্নতের জন্য, অপরটি শরীয়তের পক্ষ থেকে ওয়াজিব কুরবানীর জন্য, আর মান্নতের পশুর গোশত মান্নতকারী নিজে ও তার ধনী আত্মীয়-স্বজন খেতে পারে না।

অতএব, প্রথম প্রশ্নে বর্ণিত উক্ত ধনী ব্যক্তির উপর দু’টি পশু কুরবানী করা ওয়াজিব। শুধু মান্নতের গরুটি কুরবানী করলে তার ওয়াজিব কুরবানী আদায় হবে না এবং তার গোশত সে নিজে ও তার ধনী আত্মীয়-স্বজন খেতে পারবে না।
আর যদি এভাবে মান্নত করে যে, এই গরুটি সুস্থ হলে আগামী বৎসর আমার ওয়াজিব কুরবানী আদায় করব এবং এ মান্নত কুরবানীর দিন সমূহ ব্যতীত অন্য কোন দিন করে তাহলেও উক্ত গরু কুরবানী করার দ্বারা তার ওয়াজিব কুরবানী আদায় হবে না; বরং তার দু’টি পশু কুরবানী করতে হবে। একটি মান্নতের, অপরটি ওয়াজিব কুরবানীর।

পক্ষান্তরে, এ মান্নত যদি কুরবানীর দিনসমূহে করে থাকে তাহলে ঐ পশুটি কুরবানী করার দ্বারা তার ওয়াজিব কুরবানী আদায় হয়ে যাবে। আরেকটি পশু কুরবানী করতে হবে না।

সূত্র:

বাদায়েউস সানায়ে ৪/১৯৪, ফাতাওয়া তাতারখানিয়া: ১৭/৪১৫, খুলাসাতুল ফাতাওয়া: ৪/৩২১, আলবাহরুর রায়েক: ৮/৩২১, আল বাহরুর রায়েক ৮/৩২১, কিফায়াতুল মুফতী: ৮/১৯৬