সর্বশেষ নোটিশ

দাওয়াত ও তাবলীগ বিভাগ  

প্রতিষ্ঠানের পরিচিতি

আরও পড়ুন

আমাদের বৈশিষ্ঠ্য

আরও পড়ুন

দাওয়াত ও তাবলীগ বিভাগ

উম্মতে মুহাম্মদীর বিশেষ বৈশিষ্ট্য হল, দাওয়াতের কাজ তথা সৎ কাজের আদেশ ও অসৎ কাজে নিষেধ করা। তাই এ জামিয়ার পক্ষ হতে রীতিমত এ বিভাগ পরিচালিত……. হয়। এ বিষয়ে জামিয়ার দুটি…

আরও পড়ুন



হারাম উর্পাজনরে হাদয়িা গ্রহণ করা

প্রশ্ন: কোন মহিলার উপার্জনের মাধ্যম হল, সুদ বা অন্য কোন হারাম পন্থা। এমন মহিলা যদি তার বোনের বাড়ীতে কোন হাদিয়া বা তার টাকায় কোন কিছু ক্রয় করে দেয় তা গ্রহণ…

দারোয়ানের অনৈতিক চাপ ও জুলুম থেকে বাঁচার জন্য তাকে হাদিয়া দেয়া

প্রশ্ন: একজন বাড়ির মালিক নিজ বাড়িতে থাকেন না। দারোয়ান দিয়ে তিনি ভাড়াটিয়াদের পরিচালনা করেন। সে বাড়ির ভাড়াটিয়াগণ বিভিন্ন ক্ষেত্রে দাড়োয়ানের অনৈতিক চাপ ও জুলুমের শিকার হন এবং দারোয়ানের রিপোর্টের ভিত্তিতে…

সদকার বকরীর বয়স

প্রশ্ন: সদকার বকরীর জন্য কি ১ বৎসর পূর্ণ হওয়া জরুরী? এ ব্যাপারে ওয়াজিব সদকা ও নফল সদকার মাঝে কোন পার্থক্য আছে কী? উত্তর: সদকার বকরীর জন্য কমপক্ষে ১বৎসর হওয়া জরুরী,…

রমযান মাসে কোন হারাম টাকা না খাওয়ার সংকল্প করা

প্রশ্ন: আমি ঠিক করেছিলাম রমযান মাসে ব্যাংকের কোনও টাকা খাব না। অন্তত রমযান মাস (পারলে ১২মাস) অন্য কোনওভাবে হালাল খাব। যাতে আমার ইবাদাত কবুল হয়। আমার মা বাবা আমাকে বিয়ের…

জাতীয় ক্রীড়া মাঠ সংস্কার পরিচালকের টাকায় ক্রয়কৃত খাবার খাওয়া

প্রশ্ন: এক ব্যক্তি ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ে চাকুরী করে এবং জাতীয় খেলা পরিচালনায় মাঠের সংস্কার কাজ করে। তার আয়ের টাকায় ক্রয়কৃত কোন খাবার খাওয়া যাবে কি না? আর খাওয়া গেলে কেন যাবে…

অবৈধ উপার্জনকারী পিতা থেকে প্রাপ্ত বয়স্ক সন্তানের খরচ নেয়া

প্রশ্ন: সন্তান যদি বালেগ হয় আর তার পিতা অবৈধ ভাবে উপার্জন করে তাহলে ঐ সন্তানের জন্য তা গ্রহণ করা জায়েয হবে কি না? উত্তর: প্রাপ্ত বয়স্ক সন্তান যদি উপার্জন করতে…

যৌথ সংসারে কারো উপার্জন হারাম হলে করণীয়

প্রশ্ন: আমি সবল, সুস্থ, প্রাপ্ত বয়স্ক ছেলে। আমার উপার্জন সম্পূর্ণ হালাল। বাবার যৌথ পরিবারে থাকলে তার হারাম উপার্জন খেতে হয় কিংবা ব্যবহার করতে হয়। তাই আমি আলাদা বাসা নেই। তবে…

হালাল প্রাণীর কোন কোন অংশ খাওয়া নাজায়েয

প্রশ্ন: একটি ভক্ষণযোগ্য প্রাণীর কোন কোন অংশ খাওয়া জায়েয নেই কেন? দলীলসহ জানা প্রয়োজন। উত্তর: ভক্ষণযোগ্য হালাল প্রাণীর ৭টি অংশ খাওয়া বৈধ নয়ঃ (১) প্রবাহিত রক্ত, (২) নরপশুর লজ্জাস্থান, (৩)…

মুরগীর নাড়ী-ভুঁড়ি খাওয়া

প্রশ্ন: মুরগীর নাড়ী-ভুঁড়ি খাওয়া শরীয়তে হালাল না কি হারাম? উত্তর: হালাল প্রাণীর নাড়ী-ভুঁড়ি খাওয়া হালাল। তাই মুরগীর নাড়ীভূঁড়ি খাওয়াও হালাল। সূত্র: বাদায়েউস সানায়ে: ৪/১৯০, রদ্দুল মুহতার: ৬/৭৪৯, আপ কে মাসায়েল:…

মৃত ভাসমান মাছ খাওয়া

প্রশ্ন: মাছ যদি মরে পানিতে ভেসে উঠে তাহলে খাওয়া জায়েয কি না? উত্তর: হানাফী মাযহাব মতে মাছ ব্যতীত সমস্ত জলজ প্রাণী খাওয়া হারাম। আর মাছ যখন কোন কারণ ব্যতীত এমনিতেই…

আরও পোস্ট পেতে এখানে ক্লিক করুন

আমাদের শিক্ষা ব্যাবস্থা


আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থাপনা বিভাগ সমূহ।

কিতাব বিভাগ


এটি জামিয়ার শিক্ষা ব্যবস্থায় সর্বাধিক সমৃদ্ধ, বৃহত্তর ও প্রধান বিভাগ। এ বিভাগেই তৈরি হয় জাতির কাণ্ডারী-আধ্যাত্মিক রাহবার। দ্বীনি শিক্ষার ক্রম মূল্যায়নের ভিত্তিতে কিতাব বিভাগটি মৌলিক….

ছাত্রদের তারতীব


প্রতিদিন বাদ আসর তারা ১০/১৫ মিনিট মাশওয়ারা, দাওয়াত তা’লীম ও ইস্তেকবালের আমল করে। এক মাস পর পর একবার সকল বড় ছাত্ররা ২৪ ঘণ্টার জন্য দাওয়াতের……..

দাওয়াত ও তাবলীগ বিভাগ


উম্মতে মুহাম্মদীর বিশেষ বৈশিষ্ট্য হল, দাওয়াতের কাজ তথা সৎ কাজের আদেশ ও অসৎ কাজে নিষেধ করা। তাই এ জামিয়ার পক্ষ হতে রীতিমত এ বিভাগ পরিচালিত…….

মক্তব বিভাগ


এ বিভাগে মনোরম পরিবেশে বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে মেধানুযায়ী শিশুদেরকে মাত্র ২/৩ বছরের কোর্সে তাজবীদসহ পূর্ণ কুরআন শরীফের পাঠদান, প্রাথমিক মাসায়িলের বাস্তব প্রশিক্ষণ প্রদান এবং প্রাইমারী পর্যায়ের…

দারুল মুতালাআ


জামিয়ার সিলেবাসভুক্ত পাঠ্যপুস্তকের পাশাপাশি ছাত্রদের জ্ঞানের পরিসীমা আন্তর্জাতিক অঙ্গনে পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে সমকালীন অবস্থা ও আন্তর্জাতিক প্রেক্ষাপট সম্পর্কে অবগতির জন্য মেধাবী ছাত্রদের অগাধ জ্ঞানার্জনের তৃষ্ণা

জামিঅা ইসলামিয়া বাইতুন নূর মাদ্রাসার সংক্ষিপ্ত পরিচিতি

ভৌগলিক অবস্থান

রাজধানী ঢাকার প্রানকেন্দ্র উত্তর পশ্চিম যাত্রাবাড়িতে সায়েদাবাদ ব্রীজের দক্ষিণ পার্শ্বে অবস্তিত ।

কার্যক্রম

১.মক্তব ও নাযেরা বিভাগ ২. হিফয বিভাগ ৩. কিতাব বিভাগ ৪. তাখাসসুস ফিল ফিল ফিকহি ওয়াল ইফতা ( উচ্চতর ইসলামী আইন ও মাসাইল গবেষণা অনুষদ ) ৫. দারুত তাসনীফ (রচনা , গবেষণা ও প্রচার - প্রকাশনা বিভাগ ৬. মাকতাবাতুন নূর ( একটি অত্যাধুনিক ইসলামী লাইব্রেরী ) ৭. দাওয়াত ও তাবলীগ বিভাগ 8. গোরাবা ফান্ড : এই ফান্ড থেকে গরীব ছাএদের ফ্রি খানা, চিকিৎসা ও সার্বিক সহযোগীতা করা হয় । 

শিক্ষা পদ্ধতি 

দারুল উলুম দেওবন্দের সিলেবাসের আলোকে তথা বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশ শিক্ষাবোর্ড কর্তৃক প্রণিত  সিলেবাস ।

জামিআর পরিচালক 

প্রতিষ্ঠাকাল থেকে  জামিআ পরিচালনার গুরু দায়িত্ব পালন করে আসছেন শায়খুল হাদীস হযরতুল অাল্লাম মাওলানা মুনিরুজ্জামান দা:বা:।

জামিআর শিক্ষক ও ছাত্রসংখ্যা

জামিআর শিক্ষক সংখ্যা : ৩৮ জন 

জামিঅার ছাত্রসংখ্যা : 

লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য 

দ্বীনের জন্য নিবেদিত প্রান যোগ্য আলেম ও দা... ইলাল্লাহ তৈরি করা , যারা ইলেম আমলে হবে সালফে সালেহীনদের পূর্ণ  অনুসারী । আর দাওয়াত ও তাবলীগের ময়দানে হবে যুগের আদর্শ ব্যক্তিত্ব ।

বৈশিষ্ট ও সাফল্য  

সম্পূর্ণ  বেসরকারী খালেস একটি দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান । আর্থিক অপ্রতুলতা সত্বেও এখানে গরীব মেধাবী ছাত্রদের ফ্রি খোরাকীসহ সাধ্যমত আর্থিক সহযোগীতা করা হয় । সর্বেোপরি , ছাত্রদের আমল - আখলাক ও পড়াশুনার উন্নতির জন্য বিচক্ষণ ও সুযোগ্য শিক্ষকমন্ডলী সার্বক্ষনিক তত্ত্বাবধান করে থাকেন । যার ফলশ্রুতিতে এ মাদরাসার ছাত্ররা বেফাক বোর্ডের কেন্দ্রীয় পরীক্ষাসমূহে বিভিন্ন মারহালায় ( স্তরে ) মেধা তালিকায়  ১ম ২য় ৩য় স্থানসহ বহু সম্মানজনক স্থান অধিকার করে ধারাবাহিকভাবে সাফল্য অর্জনে  সক্ষম হচ্ছে । 

 

আমাদের শিক্ষার মান

কেন্দীয় বোর্ড পরীক্ষায় সফলতা

99%

আমল আখলাক

80%

ক্লাশে অংশগ্রহণ

98%

পাশের হার

99%

তা’লিম তারবিয়্যাত

85%

জামিআ ইসলামিয়া বাইতুন নূর মাদরাসার সম্মানিত শিক্ষকগন